অর্থ লেনদেন সংক্রান্ত অভিযোগে আদালতে ডাঃ আজিজুল হক দম্পতি

ছবিতে ডঃ আজিজুল হক ও তার স্ত্রী মহমুদা খাতুন দম্পতি। ইনসেটে ৯৫,০০,০০০/ পঁচানব্বই লক্ষ টাকা প্রতারনার মিথ্যা মামলায় আটক খন্দকার ফায়সাল আহম্মেদ ও তাসফিন আহম্মেদ।
ছবিতে ডঃ আজিজুল হক ও তার স্ত্রী মহমুদা খাতুন দম্পতি। ইনসেটে ৯৫,০০,০০০/ পঁচানব্বই লক্ষ টাকা প্রতারনার মিথ্যা মামলায় আটক খন্দকার ফায়সাল আহম্মেদ ও তাসফিন আহম্মেদ।
ছবিতে ডাঃ আজিজুল হক ও তার স্ত্রী মাহমুদা খাতুন দম্পতি। ইনসেটে ৯৫,০০,০০০/ পঁচানব্বই লক্ষ টাকা প্রতারনার মিথ্যা মামলায় আটক খন্দকার ফায়সাল আহম্মেদ ও তাসফিন আহম্মেদ।

স্টাফ রিপোর্টার : আপন ভ্যাগনার করা অভিযোগে আদালতে হাজির হবেন ডাঃ আজিজুল হক ও তার স্ত্রী মাহমুদা খাতুন দম্পতি। আজ ০৪অক্টোবর সমনের ধার্য তারিখ থাকায় আদালতে হাজির হবেন তারা। গতকাল সোমবার রাত্রি ৯টার সময় অভিযোগকারী রাজপাড়া থানাধীন লক্ষীপুর ঝাঁউতলার মোড় এলাকার কে.এম মোতাহারুল ইসলাম এর ছেলে তার ভ্যাগনা খন্দকার ফায়সাল আহম্মেদ বিষয়টি নিশ্চিৎ করেছেন। খন্দকার ফায়সাল আহম্মেদ বলেন, তার খালু ডাঃ আজিজুল হক ও তার খালা মাহমুদা খাতুন তাদের জমিজামা দখল,পাওনা অর্থ না দেয়া ও তাদের আয়করের বিষায়াদী ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার জন্য ভাই তাসফিন আহম্মেদ,ভাইরা রুবেল সরকার ও তার নামে মিথ্যা ৯৫,০০,০০০/ পঁচানব্বই লক্ষ টাকা প্রতারনার মামলা দিয়ে প্রায় ৭মাস জেল খাটিয়েছেন।

জানা যায়, লক্ষীপুর ঝাঁউতলার মিঠুর মোড় এলাকায় নির্ভর ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদা খাতুন ও স্বামী ডাঃ মোঃ আজিজুল হক লক্ষীপুর ঝাঁউতলার মোড় এলাকার কে.এম মোতাহারুল ইসলাম এর ছেলে তার ভ্যাগনা খন্দকার ফায়সাল আহম্মেদ নির্ভর ডায়াগনস্টিক সেন্টারের শেয়ারের ২,৫০,০০০/ দুইলক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা উদ্ধারে গত ৬জুন ২০২২ইং তারিখে রাজশাহী জর্জ কোর্টের এ্যাডভকেট এম.এম সাদেকুল রহমান এর মাধ্যমে ডাঃ আজিজুল হক ও স্ত্রী মাহমুদা খাতুন দম্পতিকে লিগ্যাল নোটিশ জারি করেন। এর পেক্ষিতে মাহমুদা খাতুন ও স্বামী ডাঃ মোঃ আজিজুল হক গত ২৮-০৬-২০২২ইং তারিখে রাজশাহী জর্জ কোর্টের এ্যাডভকেট মোঃ শাহ নেওয়াজ এর মাধ্যমে লিগ্যাল নোটিশ এর জবাব দিয়েছেন। এর পেক্ষিতে সিএমএম আদালতে মামলা দায়ের করলে ডাঃ আজিজুল হক ও তার স্ত্রী মাহমুদা খাতুনের নামে আদালতে হাজির হয়ে সমাধানের জন্য সমন জারি কেরেন সি.এম.এম আদালত। এই সমনের ধার্য তারিখ আগামীকাল ৪-১০-২০২২ইং তারিখ ধার্য থাকায় অভিযুক্ত ডাঃ আজিজুল হক ও তার স্ত্রী মাহমুদা খাতুন আদালতে হাজির হবেন বলে তিনি।

এ বিষয়ে জানতে ডাঃ আজিজুল হককে ফোন করে না পাওয়া গেলেও তার স্ত্রী মাহমুদা খাতুন বলেন, আমাদের স্বামী-স্ত্রীর নামে ২,৫০,০০০/ দুইলক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা উদ্ধারের অভিযোগকারী আমার বড় বোনের ছেলে। সে আমাকে কখনো এমন টাকা তুলে নিয়ে সেয়ার রাখবেনা বলেনি। সে বললেই আমি তাকে এই ২,৫০,০০০/ দুইলক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা পরিশোধ করে দিতাম। আগামীকাল আদালতে আমরা গিয়ে তার টাকা পরিশোষ করে দেবো বলে জানান তিনি।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০