আরইউজে’র সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের সেচ্ছাচারিতা

প্রতিবাদে রাজশাহী সাংবাদিক সমাজের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি : রাজশাহীতে তিন দিন ব্যাপি বাংলাদেশ প্রেস ইনিষ্টিটিউট আয়োজিত সাংবাদিকদের বুনিয়াদী প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকদের উপস্থিতি নিয়ে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে’র) সভাপতি কাজী শাহেদ ও সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদের সেচ্ছাচারিতার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ বুধবার বিকেলে মহানগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে রাজশাহী সাংবাদিক সমাজের আহ্বায়ক নুরে ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন, দৈনিক উপচার পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি ও সাংবাদিক সমাজের সদস্য রেজাউল করিম।

সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে যোগ্য ও দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে আসছে বাংলাদেশ প্রেস ইনিষ্টিটিউট। প্রতিবারই এ প্রশিক্ষণের সকল দায়িত্ব পালন করে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে’র) সভাপতি কাজী শাহেদ ও সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ। বহুদিন ধরে এ প্রশিক্ষণের কর্মসূচী চলে আসলেও আরইউজে’র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সেচ্ছাচারিতায় রাজশাহী থেকে প্রকাশিত প্রায় ৭টি পত্রিকার রিপোর্টার ও ফটো সাংবাদিকরা কখনোই এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করতে পারে নাই। কখনো কখনো এই সব প্রশিক্ষণে রাজশাহীর কয়েকটি পত্রিকার একাধিক রিপোর্টার একাধিকবার অংশগ্রহণ করেছেন। ফলে রাজশাহীর বেশ কিছু স্থানীয় পত্রিকার সম্পাদক, বার্তা সম্পাদক ও রিপোর্টারদের হেয়প্রতিপন্ন করা হয়েছে।

সম্মেলনে আরো জানানো হয়, দীর্ঘদিন ধরে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাজী শাহেদ ও সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদের সেচ্ছচারিতায় সকল সাংবাদিকদের এক দৃষ্টিতে না দেখে, সাংবাদিকদের মাঝে বৈষম্য ও বিভেদ সৃষ্টি করা হয়েছে। সরকার থেকে দেয়া সব ধরনের সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করছে সাংবাদিকদের। গত দুই দিন আগে শুরু হওয়া রাজশাহী স্থানীয় ও উপজেলার পর্যায়ের সাংবাদিকদের নিয়ে এক কর্মশালা শুরু হলেও, স্থানীয় প্রায় ৭টি পত্রিকার রিপোর্টার ও উপজেলা ্পর্যায়ের রিপোর্টারদের এই কর্মশালায় নেয়া হয়নি। এমনকি সেই সব পত্রিকার সম্পাদকদের সাথেও কোন ধরনের আলোচনা করা হয়নি বলে সম্মেলনে অভিযোগ তোলা হয়। ফলে স্থানীয় বহু সাংবাদিক এই প্রশিক্ষণ থেকে বঞ্চিত হয়েছে। রাজশাহীর যেসব সাংবাদিক এই ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছের লোক বলে বিবেচিত হয়েছেন, শুধু তারাই প্রশিক্ষণ থেকে শুরু করে সরকার থেকে দেয়া সব ধরনের সহায়তা পেয়ে যাচ্ছেন। এসময় সংবাদিক সম্মেলনে দৈনিক উপচার পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক ড. আবু ইউসুফ সেলিম, দৈনিক রাজশাহীর আলো পত্রিকার সম্পাদক আজিবার রহমান, দৈনিক গণধ্বনি প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক ইয়াকুব শিকদার উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও এ সংবাদ সম্মেলনে একাত্বতা ঘোষণা করেছেন, বরেন্দ্র প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক শাহিন আক্তার ও দৈনিক রাজবার্তা কর্তৃপক্ষ। এর আগে, বুধবার দুপুরে রাজশাহী সাংবাদিক সমাজের ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটিতে আহ্বায়ক দৈনিক উপচার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নুরে ইসলাম মিলন, যুগ্ম আহ্বায়ক দৈনিক রাজশাহীর আলো পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক আবু কাউসার মাখন, যুগ্ম আহ্বায়ক দৈনিক গণধ্বণি প্রতিদিন প্রত্রিকার ফটো সাংবাদিক মাসুদ আলী পলক। এছাড়া সদস্য হিসেবে রয়েছেন, দৈনিক বার্তা’র মহানগর প্রতিনিধি মাসুদ রানা রাব্বানী, দৈনিক আমাদের রাজশাহী’র সিনিয়র রিপোর্টার শাহরিয়ার অনতু, দৈনিক গণধ্বণি প্রতিদিনের ফটো সাংবাদিক কাবিল হোসেন, দৈনিক উপচার পত্রিকার প্রধান প্রতিবেদক এসএম আব্দুল কাজিম, দৈনিক উপচারের বিশেষ প্রতিনিধি রেজাউল করিম, দৈনিক বরেন্দ্র প্রতিদিনের স্টাফ রিপোর্টার এসএম বিশাল, দৈনিক রাজবার্তার স্টাফ রিপোর্টার সুমেন মোন্ডল ও দৈনিক বরেন্দ্র প্রতিদিনের স্টাফ রিপোর্টার মাইনুল ইসলাম।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০