করোনাকালে রাজশাহীর ফ্যাশন হালচাল

রাশেদ শাওন: রাজশাহীতে করোনাকালে দীর্ঘদিন ধরেই ঘরবন্দী জীবনযাপন করছে মানুষ। পুরো পৃথিবীকে বদলে দিয়েছে এই করোনাভাইরাস। তাই সবাইকে এখন নতুন প্রকৃতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হচ্ছে। এই সময়ে বিশ্ব ফ্যাশনেও এসেছে পরিবর্তনের হাওয়া। তাই শতবাধাকে উপেক্ষা করে আমাদের রাজশাহীর ফ্যাশন জগতও এখন থেমেনেই। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ই-কমার্সকে কাজে লাগিয়ে অন-লাইন এ কাজ করে যাচ্ছে রাজশাহীর অনেক তরুণ-তরুণী ও ফ্যাশন হাউজ গুলো ।এদের মধ্যে রাজশাহীর খুবই জনপ্রিয় এক ফ্যাশন হাউজ ‘’মেক ওভার ফ্যাশন’’কে দেখা গেছে তারা রাজশাহীতে করোনার এমন কঠিন পরিস্থিতেও তাদের বিভিন্ন ক্রেতাদের অন-লাইন সেবা দিয়ে রাজশাহীর ফ্যাশন ট্রেন্ডটাকে ধরে রেখেছে এবং দিয়ে যাচ্ছে রাজশাহী সহ সারা দেশে বিভিন্ন পোশাকের সেবা ও করে যাচ্ছে সামাজিক অনান্য সেবাগুলোও। করোনাকালের ফ্যাশনে প্রকৃতিকেই অনেক গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

এই বর্ষাকালে ফ্যাশনের অন্যতম মোটিফ হয়ে উঠেছে প্রকৃতি। পোশাকে স্থান পাচ্ছে প্রকৃতির বিভিন্ন অনুষঙ্গ ফুল, লতা,পাতা,ইত্যাদি।
মডেল: প্রিয়া, পুষ্পা, মাহিরা ও প্রেমা।

এখন একটাই কথা চারদিকে—প্রচণ্ড গরম। করোনা সংক্রমণের কারণে বাইরে বের হলে পরতে হচ্ছে মাস্ক। গরম অনুভূত হচ্ছে আরও বেশি। আসলে পোশাকটা এ সময় হওয়া চাই একটু আরামদায়ক। ঢিলেঢালা, নরম কাপড়ের তৈরি, কম কাজ—এই তিনের সমন্বয় এখনকার জন্য উপযোগী। চোখে যা দেখে শান্তি লাগে, মনেও যেন তার প্রভাব পড়ে। লম্বা বা ছোট কুর্তা, টপ বা শার্ট চলতি ধারায় রাখার পাশাপাশি ব্যস্ততায় কিছুটা স্বস্তিও আনে।

মডেল: দুপুর,মাসুম, রিয়াল ও সাকিব।

‘’মেক ওভার ফ্যাশন’’এর সিনিয়র ফ্যাশন ডিজাইনার মোঃ রাশেদুল হক শাওন দৈনিক উপচারকে বলেন, ‘প্রতিটা উৎসবকে মাথায় রেখে বিভিন্ন থিমে সাজে এখনকার ফ্যাশন হাউজগুলো। আর করোনাকালের সকল জরা ব্যাধি ভুলে, প্রকৃতিকে নিবিড়ভাবে উপলব্ধি করে আমরা সৃষ্টির মধ্যে ফুটিয়ে তুলতে চেয়েছি প্রকৃতিকেই। তাই এখন আমাদের মূল প্রেরণাই হলো এখনকার এই প্রকৃতি এবং প্রাকৃতিক বিভিন্ন রূপ।

মডেল: কণা, প্রেমা ও মাহিরা।

এই মহামারি করোনা পরিস্থিতিতে ফ্যাশনের মাধ্যমেই কী মানুষকে প্রকৃতি নিয়ে সচেতন করে তোলার চেষ্টা করা হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে মোঃরাশেদুল হক শাওন বলেন, ‘হ্যাঁ কথাটা ঠিক। কিন্তু শুধু রাজশাহীতেই নয় দেশের সকল এলাকার সমাজের প্রতি একটা দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধ নিয়ে আমরা নিজ নিজ অবস্থান থেকে প্রতিনিয়ত লড়াই করে যাচ্ছি।

মডেল: পুষ্পা, প্রিয়া ও প্রেমা।

ফ্যাশনের মাধ্যমে মানুষকে প্রকৃতি নিয়ে সচেতন করে তোলার চেষ্টা অবশ্যই হচ্ছে।বিশ্ব ফ্যাশনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে চলতে আপনি বেছে নিতে পারেন প্রকৃতি সাথে তাল মিলানো রঙের কিছু পোশাক। সেটা হতে পারে শার্ট, টিশার্ট, শাড়ি,পাঞ্জাবী, জামা, কুরতি বা টপস । এছাড়া,এখনকার ফ্যাশনে বিভিন্ন পশু-পাখির নকশাও যোগ হয়েছে। চাইলে সেগুলোও রাখতে পারেন পছন্দের তালিকায়। এতে আপনার পোশাকে একটু বৈচিত্র্য আসবে। আগেও এসব প্রিন্ট ব্যবহার করা হয়েছে। কিন্তু, করোনা শুরুর পর থেকে পোশাকে প্রকৃতিকেই বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। সেজন্য কখনো স্থান পাচ্ছে প্রকৃতির সবুজ রঙ, কখনো পশুর বা পাখির পালকের রঙ, কখনো ফুলের পাতার রঙ ইত্যাদি।

আর এসবই এখন বিশ্ব ফ্যাশনের ট্রেন্ড। এ যেন পোশাকের মাধ্যমেই মানুষকে একটু প্রকৃতি সচেতন করার চেষ্টা। আমরা যারা যুবক ব্যবসায়িকরা আছি তারা একটু চাহিলেই কিন্তু আমাদের প্রাণের শহর রাজশাহীর ফ্যাশন হালটাকেও ধরে রাখতে পারি। তাই আমরা এই করোনাকালেও সাস্থবিধী মেনে রাজশাহীর ফ্যাশন ট্রেন্ডটাকে ধরে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছি আর সতর্কতার সাথে অনলাইন ও অফলাইনে কাজ করে যাচ্ছি। সবাই আমাদের জন্য দুয়া করবেন।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০