কৃত্রিম হোক তবু ফুল

উপচার ডেস্ক: ‘কাগজের ফুল তুমি, তাই তো তোমার মাঝে প্রাণ নেই/দূর থেকে সুন্দর কাছে গেলে দেখি তাতে ঘ্রাণ নেই…!’ শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ-এর এই গানের কথাগুলো নিরেট সত্যি। তবু আমাদের অনেকের ঘরেই এখন তাজা গোলাপ, রজনীগন্ধা বা বেলি ফুলের স্থানে শোভা পায় এসব কৃত্রিম ফুল। আমাদের শহুরে যান্ত্রিক জীবনে প্রতিদিন তাজা ফুল কিনে এনে মনের খোরাক মেটানোটা বেশ কষ্টকর। তাই ঘর সাজাতে বা ফুলের প্রশান্তি পেতে এক্ষেত্রে কৃত্রিম ফুলের কোনো বিকল্প নেই। শহুরে মানুষ ফুলের সৌন্দর্যের সাধ মেটাচ্ছে প্লাস্টিক, কাপড়, নেট বা কাগজের ফুলে। আমাদের দেশে প্লাস্টিকের তৈরি কৃত্রিম ফুলের সংখ্যা খুব কম যা তৈরি হয় বেশিরভাগই নেট, কাগজ বা কাপড় থেকে। আমাদের দেশের গ্রাম বা শহরতলির মহিলারা ঘরে বসে এসব নেট বা কাপড়ের ফুল তৈরি করেন। পরবর্তীতে বিক্রির জন্য সেগুলো শহরে আনা হয়। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য এসব নিম্নবিত্ত মহিলা কোনো মেশিন বা যন্ত্রের সাহায্য ছাড়াই শুধু হাতের কারুকার্যে তারা এসব ফুল তৈরি করেন। ফুল তৈরির আগে কাপড় বা কাগজকে পাপড়ির মাপে কেটে নিতে হয়। এক ধরনের মেডিসিন আছে যা পাপড়িগুলোকে শক্ত করতে সাহায্য করে। সেই মেডিসিনে পাপড়িগুলো কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখা হয়। এরপর পাপড়িগুলো একত্র করে ফুলের আকৃতিতে ফুলের ডালের সঙ্গে বেঁধে দেয়া হয় বা গাম দিয়ে লাগানো হয় আর নেটের ফুল তৈরিতে চিকন তার বা শক্ত কোনো জিনিস দিয়ে পাপড়ির ফ্রেম করে নিতে হয়। এরপর নেটের কাপড় ওই ফ্রেমে পেঁচিয়ে ওটাকে সঠিক আকৃতি দেয়া হয়। পরে ডালের সঙ্গে ফুলের গড়ন মতো বেঁধে বা লাগিয়ে দেয়া হয়। ফুল তৈরি শেষে ডিজাইনের জন্য জরি, পুঁথি বা আলাদা রং দিয়ে বিভিন্ন নকশা করা হয়। গোলাপ, জারবারা, চন্দ্রমল্লিকা, পদ্ম, ডালিয়াসহ বিভিন্ন ধরনের কৃত্রিম ফুল বাজারে পাওয়া যায়। ইদানীং নেটের কাপড় দিয়ে স্বচ্ছ কিছু রঙিন ফুল তৈরি করা হয়। চার বা পাঁচ পাপড়ির এসব ফুল দেখতে সত্যিই বর্ণময়। প্লাস্টিকের তৈরি ফুলগুলো অধিকাংশ দেশের বাইরে থেকে আমদানি করা হয়। চীন, মিয়ানমার, নেপাল, থাইল্যান্ড, পাকিস্তানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নানা ধরনের কৃত্রিম ফুল আমদানি করা হয়। রাজধানীর নিউমার্কেট, মৌচাক, মেট্রো শপিং মল, বসুন্ধরা সিটিসহ বিভিন্ন গিফট শপ বা দোকানে এসব কৃত্রিম ফুল পাওয়া যায়। নিজের ঘর সাজানো হোক আর প্রিয়জনকে

উপহার দেয়ার জন্য হোক, কিনে নিতে পারেন পছন্দসই ফুল আর এই ফুল উপহার হিসেবেও দিতে পারেন প্রিয়জনকে। এতে আপনার মনের হৃদ্যই প্রকাশ পাবে।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১