জ্যোতিকা জ্যোতি আজ সিঁদুর খেলবেন

বিনোদন ডেস্ক :  সনাতন ধর্মাবলম্বী সাধারণ মানুষের মতো শোবিজ অঙ্গনের তারকাদের মনেও লেগেছে শারদীয় দুর্গাপূজার আনন্দ। শুটিংয়ের ব্যস্ততার ফাঁকে পূজা উপলক্ষে অনেকেই গ্রামের বাড়ি গিয়েছেন। সেখানে পরিবারের সঙ্গে পূজার সময়টুকু তারা উপভোগ করবেন। গত বুধবার রাতে ঢাকা থেকে ময়মনসিংহের গৌরীপুর নিজ বাড়িতে গিয়েছেন দুই পর্দার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি।

রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে জ্যোতি বলেন, বুধবার রাতে ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ এসেছি। সন্ধ্যায় গৌরীপুর মন্দিরে পূজা দেখেছি। জ্বর-ঠান্ডায় আক্রান্ত হয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। জ্বর থেকে সেরে উঠলেও এখনো ঠান্ডা রয়ে গেছে। তবে পূজার আনন্দের কাছে এটুকু অসুস্থতা কিছু নয় বলে মনে করেন তিনি। আজ শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) বিসর্জন। দশমীর দিন ময়মনসিংহ সদরে কাটাবেন জ্যোতি। এ প্রসঙ্গে জীবনঢুলি’খ্যাত এই অভিনেত্রী বলেন, ব্রহ্মপুত্রে খুব সুন্দর বিসর্জন হয়! বরাবরই অনেক রাত পর্যন্ত বিসর্জন দেখি। এবারো তাই করব। আর আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবের বাড়ি বেড়াতে যাব।

প্রথা অনুযায়ী দশমীর দিন সিঁদুরখেলায় অংশ নেবেন এই অভিনেত্রী। কিন্তু অবিবাহিতা কন্যা সিঁদুরখেলায় অংশ নিতে পারেন কিনা? এ প্রশ্নের উত্তরে জ্যোতি বলেন, বিবাহিতারা সিঁথিতে সিঁদুর দেন। আর আমরা দেব গালে। ফলে এতে কোনো সমস্যা নেই। আমিও সিঁদুরখেলায় অংশ নেব। শুধু আমি না, আমার মা, ভাই-বোন, আশেপাশের সবাই অংশ নেবে। এতে পরিচিত-অপরিচিত সবাই সবাইকে সিঁদুর পরিয়ে দেয়। ছেলে-মেয়ে উভয়েই সিঁদুরখেলায় অংশ নিতে পারে।

বিজয়াদশমীর দিন ঢাক-কাঁসরের বাদ্যি-বাজনা, পূজারি-ভক্তদের পূজা-অর্চনায় কেবলই মা দুর্গার বিদায়ের আয়োজন। এদিন অশ্রুসজল চোখে দুর্গা প্রতিমাকে বিসর্জন দেওয়া হয়। ছোটবেলায় বিসর্জনের দিন মন খারাপ হতো জ্যোতির। জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, ছোটবেলায় বিসর্জনের দিন খুব মন খারাপ হতো। এখন ঠিক মন খারাপ হয় না। কিন্তু কেমন যেন একটা অনুভূতি হয়।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০