নাচোলে কারেন্ট পোকা দমনে বাজারে প্রয়োজনীয় কীটনাশক না পাওয়ায় দিশেহারা কৃষক

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে চলতি মৌসুমে আমন ধানে কারেন্ট পোকার আক্রমণ বেড়ে চলেছে। এদিকে কারেন্ট পোকা দমনে বাজারে প্রয়োজনীয় কীটনাশক না পাওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কৃষক। উপজেলা কৃষি অফিস আশঙ্কা প্রকাশ না করলেও কৃষকরা বলছেন, সময়মতো কারেন্ট পোকা দমন করতে না পারলে আমন উৎপাদন ব্যাহত হতে পারে। জানা গেছে, চলতি মৌসুমে নাচোল উপজেলায় এবার আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২১ হাজার ২৮০ হেক্টর জমি। এর বিপরীতে ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৮৮ হাজার ৩২৮ মেট্রিক টন। কিন্তু গত কয়েক দিন ধরে জমিতে কারেন্ট পোকার আক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হতে পারে বলে কৃষকদের আশঙ্কা। নাচোলের নেজামপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামের কৃষক আবদুল কাদের জানান, জুলাইয়ের মাঝামাঝি থেকে আমন চাষ শুরু হয়। কারেন্ট পোকার আক্রমণ দেখা দেয় নভেম্বরের মাঝামাঝিতে। তাতে ধানের ক্ষতি খুব কম হয়। কিন্তু এবার অনেক আগে থেকেই ধানে কারেন্ট পোকার আক্রমণ শুরু হয়েছে।
ফতেপুর ইউনিয়নের সিংরইল গ্রামের কৃষক দুরুল হোদা বলেন, ‘কারেন্ট পোকা দমনের প্রয়োজনীয় কীটনাশক বাজারে না পাওয়ায় চরম বিপদে পড়েছি।’ সময়মতো কারেন্ট পোকা দমন করতে না পারলে এবার ধান উৎপাদন ব্যাহত হতে পারে বলে জানান তিনি। কীটনাশক সংকট বিষয়ে নেজামপুর বাজারের কীটনাশক ব্যবসায়ী ইয়াহিয়া খালেদ জানান, প্রতিদিনই শত শত কৃষক আসছেন কারেন্ট পোকা দমনের কীটনাশক কিনতে। কিন্তু কোম্পানির অপ্রতুল সরবরাহের কারণে প্রয়োজনীয় কীটনাশক না পেয়ে অনেক কৃষকই ফেরত যাচ্ছেন। এ বিষয়ে নাচোল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সত্যেন কুমার মুঠোফোনে বলেন, ‘ধান ক্ষেতে কারেন্ট পোকার আক্রমণ ঠেকাতে জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকদের সমন্বয়ে মাঠপর্যায়ে কৃষকদের নিয়ে উদ্বুদ্ধকরণ সভা করা হয়েছে। সচেতনতা সৃষ্টিতে এরই মধ্যে এ সম্পর্কিত প্রচারপত্র বিতরণ করা হয়েছে। কারেন্ট পোকা দমনে ধান ক্ষেতে আলোক ফাঁদ তৈরির জন্য কৃষকদের বলা হয়েছে।’ তবে কারেন্ট পোকার আক্রমণে ধান উৎপাদন ব্যাহত হবে না বলে জানান এ কৃষি কর্মকর্তা।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১