বয়সের তারতম্য অধিকারেও?

উপচার ডেস্ক: বয়সে ছোট কিংবা বড় হলে অধিকারের বেলায়ও কম-বেশি হয়? বিশেষ করে ভাইবোনদের ক্ষেত্রে? অনেক সময় এমন কথা প্রায় শোনা যায় যে বয়সে বড়দের ক্ষেত্রে অধিকারের মাত্রা বেশি। দেখা যাক আইন কী বলছে।

সম্পত্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে
আইনে কোথাও বয়সে তারতম্যের জন্য আইনি কোনো অধিকার ভোগ করার ক্ষেত্রে কোনো তারতম্য করা হয়নি। বিশেষ করে সম্পত্তি বণ্টনে। মুসলিম আইনে বলা হয়েছে বাবা বা মা মারা গেলে মৃত ব্যক্তির যদি ছেলে ও মেয়ে উভয়ই থাকে তাহলে রেখে যাওয়া সম্পত্তিতে ছেলেরা যা পাবেন, মেয়ে বা মেয়েরা তার অর্ধেক পাবেন। এ ক্ষেত্রে বড় সন্তান বেশি পাবে কিংবা ছোট সন্তান কম পাবে এমন কোনো বিধান নেই।

সম্পত্তির বণ্টনের সময় বয়সভেদে কোনো প্রকার তারতম্য রাখা হয়নি। সব সন্তান যার যতটুকু প্রাপ্য তা সমানভাবে পাবে। কেউ যদি স্বেচ্ছায় নিজের অংশ কাউকে লিখে দিতে চায় অর্থাৎ দান করে দিতে চায় তাহলে সে তা যথাযথ উপায়ে অন্য ভাই কিংবা বোনদের লিখে দিতে পারে। তবে যদি কেউ নাবালক বা অপ্রাপ্তবয়স্ক থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে কিছু বিধিবিধান মানতে হবে। কোনো নাবালক সন্তান যদি থাকে তাহলে বাবা বেঁচে না থাকলে সেও বাবার জমির মালিক হয়, তবে সে নাবালক অবস্থায় তা ভোগদখল করতে পারে না। নাবালকের পক্ষেএ সম্পত্তি দেখাশোনা করে নাবালক সন্তানের অভিভাবক। নাবালক সন্তান যখন সাবালক বা প্রাপ্তবয়স্ক হন তখন তাঁকে তাঁর সম্পত্তি বুঝিয়ে দিতে হবে। নাবালকের সম্পত্তি ইচ্ছে করলেই বিক্রি বা দান করে দেওয়া যাবে না। যদি নিতান্তই বিক্রি বা দান করার প্রয়োজন হয় তাহলে আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে তাঁর বৈধ অভিভাবক তা করতে পারেন। অনেক সময় দেখা যায় মা নাবালক সন্তানের অভিভাবক হওয়ার জন্য পারিবারিক আদালতে আবেদন দায়ের করেন। পরবর্তী সময়ে নাবালক সন্তানের সম্পত্তি বিক্রি করার জন্য আদালতের অনুমতি গ্রহণ করেন। এ ক্ষেত্রে অন্য ভাইবোন যদি প্রাপ্তবয়স্ক থাকে আদালত তাঁদের মতামতও গ্রহণ করতে পারেন।

আইনে কোথাও বয়সের বিষয়ে কোনো আলাদা সুবিধার কথা বলা হয়নি। তবে বয়সে যে বড় তার কিছু নৈতিক দায়দায়িত্ব পালন করতে হয়। এর সঙ্গে আইনের কোনো বাধ্যবাধকতার সম্পর্ক নেই। বয়সে ছোট হলেই তাকে কোনো অধিকার থেকে বঞ্চিত করা যাবে না। যদি কাউকে বঞ্চিত করা হয় তাহলে তিনি আদালতের আশ্রয় গ্রহণ করতে পারেন। দেওয়ানি আদালতে বণ্টনের মোকদ্দমা দায়ের করতে পারেন। যদি ভাই বা বোনকে বণ্টনের দলিল করে দিলেও সে অনুযায়ী দখল না দিলে কিংবা দখল থেকে বিতাড়িত করলে তাহলে দখল পুনরুদ্ধারের জন্য মামলা করা যায়। যদি ভুয়া দলিল বা জাল দলিল কেউ তৈরি করে তাহলে দেওয়ানি ও ফৌজদারি উভয় মামলা করা যায়।

বাবা-মায়ের ভরণপোষণ
শুধু সম্পত্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে নয়, বয়স্ক মা-বাবার দেখাশোনা কিংবা ভরণপোষণ দেওয়ার ক্ষেত্রেও সন্তানদের কোনো তারতম্য রাখা হয়নি। যদি সন্তানেরা প্রাপ্তবয়স্ক এবং কর্মক্ষম হন তাহলে বৃদ্ধ বাবা-মায়ের দায়িত্ব সমানভাবে নিতে হবে। আইনে কোথাও বলা হয়নি যে বড় সন্তান বেশি দায়িত্ব পালন করবে আর ছোট সন্তান কম। বৃদ্ধ বাবা-মা সন্তানদের কাছে সমানভাবে ভরণপোষণ কিংবা অধিকার ভোগ করার অধিকারী। যদি কোনো সন্তান বাবা-মাকে বেশি দেখভাল বা ভরণপোষণ বেশি দিতে চান তিনি তা দিতেই পারেন। এ ক্ষেত্রে আইন তাঁকে বারণ করেনি।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১