ভারশোঁ আওয়ামী লীগের স্মরণকালের সর্ববৃহৎ জনসভা

স্টাফ রির্পোটার : রাজশাহীর তানোরের সীমান্তবর্তী মান্দা উপজেলার এক নম্বর ভারশোঁ ইউনিয়ন (ইউপি) আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নির্বাচনী পথসভা আয়োজন করা হয়েছে। এদিকে হাজার মানুষের উপস্থিতিতে পথ সভা স্মরণকালের সর্ববৃহত জনসভায় রুপ নেয়।আর এসব হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি প্রমাণ করে ভারশোঁ ইউপিতে সুমনের কোনো বিকল্প নাই, জনগণের ভালবাসায় সুমন ফের চেয়ারম্যান হচ্ছেন এটা প্রায় নিশ্চিত।

জানা গেছে, আজ ২৪ নভেম্বর ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, চেয়ারম্যান ও নৌকার প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সুমনের সঞ্চালনায় এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা রফাতুল্লাহ প্রামানিকের সভাপতিত্বেএবং ইউপি আওয়ামী লীগের উদ্যোগে চৌবাড়িয়া পশুহাটে আয়োজিত নির্বাচনী পথ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মান্দা উপজেলা চেয়ারম্যান এমদাদুল হক।অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন মন্ডল, সম্পাদক নাহিদ মোর্শেদ বাবু, আব্দুল লতিফ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোবারক হোসেন, গৌতম কুমার মাহান্ত ও নওশাদ আলী প্রমুখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, আওয়ামী লীগ দেশের সর্ববৃহত রাজনৈতিক দল এই দলে মনোনয়ন পাবার মতো অনেক যোগ্য নেতা রয়েছে তবে দল থেকে তো এক জনকে মনোনয়ন দেয়া হয় এবং মনোনয়ন বোর্ড, দলের সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়ন দেন, তায় মনোনয়ন বঞ্চিত হলে রাগ বা অভিমান করার কিছু নাই। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের ধারক-বাহক এবং নৌকা হলো উন্নয়নের প্রতিক, তায় উন্নয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রার্থী কে সেটা বিবেচ্য নয় আপনারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন।

কি ভাবে দলের মনোনিত প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করা যায় সেই বিষয়গুলোর ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে তিনি দিকনির্দেশনামুলক বক্তব্য দেন। এসময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনিত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে সকল নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন উপস্থিত নেতা ও কর্মী-সমর্থকেরা। এছাড়াও কেউ যদি বিদ্রোহী বা স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ভোট করার নামে দলে বিশৃঙ্খলা সৃস্টি করতে চাই তাহলে তাকে শক্ত হাতে প্রতিহত করা হবে বলে উপস্থিত সকল নেতাকর্মীগণ ঐক্যমত পোষণ করেন। অন্যান্য বক্তাগণ বলেন, ইউপি আওয়ামী লীগ সভাপতি আলতাজ উদ্দিন প্রামানিক এক সময় বিএনপির প্রয়াত নেতা ব্যারিষ্টার আমিনুল হকের হাতে ফুলের মালা নিয়ে বিএনপিতে যোগদেন। আবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে তিনি খোলস পাল্টিয়ে আওয়ামী লীগে ফিরে আসেন।

এদিকে আওয়ামী লীগে ফিরে সংগঠন পরিপন্থী কর্মকান্ডের জন্য তাকে দল থেকে বহিঃস্কার করা হয়।কিন্ত্ত ৩ বছর বহিঃস্কার থাকার পর নেতাকর্মীদের হাতেপাঁয়ে ধরে ও আর কখানো দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে কোনো কর্মকান্ড করবেন এমন মুচলেকা দিয়ে আওয়ামী লীগে ফিরেছেন। এবার আবারো ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে সে ফের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। অথচ আওয়ামী লীগে থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হয়ে আওয়ামী লীগের খেয়ে পরে মোটাতাজা আওয়ামী লীগের নৌকা ডোবাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে, তবে এবার আর সেই সুযোগ দেয়া হবে না। বক্তারা বলেন, আগামি কাল থেকে যারা নৌকার বিরোধীতা করবেন তারা আওয়ামী লীগ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবেন এরা আওয়ামী লীগের কেউ না, তাই কারো কোনো কথা না শুনে আপনারা নৌকার বিজয় ঘটাতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবেন।#

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০