মাঠে মাঠে সোনালী ফসলের হাতছানি

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজশাহীর মাঠে মাঠে এখন আমন ধানের ক্ষেত। আর মাসখানেক পরেই উঠবে আমন ধান। দাম ভাল পাওয়ায় শেষবারের মত ক্ষেতের যত্ন নিচ্ছেন চাষিরা। বর্ষায় ধান ক্ষেত তলিয়ে যাওয়া, পাতা মরা ও পোকার আক্রমন পেরিয়ে অনেকটা স্বস্তিতে আছেন তারা। আধাপাকা ধানের শীষের পানে চেয়ে আছেন কৃষক-কৃষানী। আগামী স্বপ্ন তাদের চোখে। উৎপাদন ভাল হওয়ার প্রত্যাশা করছেন চাষি ও কৃষি সংশ্লিষ্টরা। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে জানা গেছে, বাজারে ধানের দাম ভাল থাকায় লক্ষ্যমাত্রার বেশী জমিতে আমন ধানের চাষ হয়। এবারে জেলা বিভিন্ন উপজেলায় আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭০ হাজার হেক্টর। তবে চাষ হয়েছিল ৭৩ হাজার হেক্টর। কিন্তু অতিরিক্ত বর্ষা ও বাধ ভেঙ্গে ১২ হাজার হেক্টর জমি তলিয়ে যায়। রাজশাহীর বরেন্দ্র অঞ্চলসহ বিভিন্ন উপজেলার মাঠ জুড়ে এখন সোনালী শীষের দোলা। বিস্তৃত মাঠ জুড়ে যে দিকে তাকায় সে দিকেই দেখা যায় শুধুই ধানের শীষ। কৃষকদের মুখে স্বপ্ন বিভোর সোনালী হাসি। কৃষকদের মাঝে চলছে শেষবারের মত যত্ন। পোকার আক্রমন, শীষ ও পাতা মরা থেকে ক্ষেত বাঁচাতে প্রয়োগ কীটনাশক। তবে চাষিরা জানান, ইঁদুরের আক্রমনে অনেক ক্ষেত নষ্ট হচ্ছে। এবার এই বরেন্দ্র অঞ্চলসহ রাজশাহীতে আমন ধানের ব্যাপক ফলনের আশা করছেন কৃষক ও কৃষিবিদরা। যদি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ভালভাবেই গোলায় ধান তুলবে চাষিরা। কৃষকদের পাশাপাশি কৃষানীরা ব্যস্ত ধান রাখার গোলা লেপে মুছে ভালভাবে পরিষ্কার করতে। জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে চলতি আমন মৌসুমের চাষাবাদকৃত ধানের ক্ষেত এখন গাঢ় সবুজ থেকে সোনালীতে রুপে পরিনত হয়েছে। সম্প্রতি দিগন্ত জুড়ে নজর কাড়ছে আমন ফসলের ক্ষেত। কোন ক্ষেতে শীষে পাক ধরেছে। আবার কোন কোন শীষ বেরুচ্ছে। ইতোমধ্যে ক্ষেত পরিচর্যা শেষ করে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফার সার-কীটনাশক প্রয়োগ অব্যহত রেখেছেন কৃষকরা। ববার সরোজমিনে মোহনপুর উপজেলার মৌগাছি গ্রামের মাঠে ধানের ক্ষেতে শেষ বারের মত কীটনাশক দিচ্ছিলেন কৃষক আব্দুল মজিদ। তিনি বলেন, প্রতিমণ (৪০ কেজি) ধানের দাম ১৪শ’ টাকা। ক্ষেতে যত্ন না নিলে উৎপাদন ভাল হবে না। আর ক’দিন পরেই ঘরে ধান উঠবে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক দেব দুলাল ঢালী বলেন, এবারে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আমনের আবাদ বেশী হয়েছিল। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগে কিছু ক্ষেত নষ্ট হয়। এরপরেও বেশীরভাগ ক্ষেতের ধানই ভাল আছে। উৎপাদনও ভাল হবে বলে আশা করছি। বাজারে দাম ভাল থাকায় চাষিরা লাভবান হবে।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০