রাবিতে আইবিএ শিক্ষার্থীর হাতে শিক্ষক লাঞ্ছিত

রাবি প্রতিনিধি: ইন্টার্নশীপ পেপারে স্বাক্ষর করাকে কেন্দ্র রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ব্যবসা প্রশাসন ইনস্টিটিউটের (আইবিএ) এক শিক্ষককে মারধর করেছে ওই ইনস্টিটিউটের এক শিক্ষার্থী। সোমবার দুপুর আড়াইটায় আইবিএ ভবনে ভুক্তভোগী শিক্ষকের চেম্বারে এই ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিক্ষকের নাম অধ্যাপক ড. হাসনাত আলী। মারধরকারী শিক্ষার্থীর নাম নাহিদ হায়দার। তিনি আইবিএ’র নবম ডে ব্যাচের শিক্ষার্থী।
আইবিএ সূত্রে জানা যায়, অধ্যাপক হাসনাত আলীর তত্ত্বাবধায়নে ছয় জন শিক্ষার্থী ইন্টার্নশীপ করছিল। সোমবার ছিল ইন্টার্নশীপ জমা দেয়ার শেষ তারিখ। এদিন দুপুরে নাহিদ ইন্টার্নশীপ পেপার জমা দেয়ার জন্য আসলে শিক্ষকের দেখা পাননি।
এসময় শিক্ষক হাসনাত আলী তার ব্যক্তিগত কাজে বাইরে অবস্থান করছিলেন। নাহিদ ওই শিক্ষককে বারবার ফোন দিয়ে ইনস্টিটিউটে আসার জন্য তাগাদা দেয়। শিক্ষক হাসনাত আলী ইনস্টিটিউটে তার চেম্বারে আসলে নাহিদের সঙ্গে বাকবিত-া লেগে যায়। এক পর্যায়ে নাহিদ শিক্ষক হাসনাত আলীকে মারপিট করে।

ভুক্তভোগী শিক্ষক অধ্যাপক হাসনাত আলী জানান, ইন্টার্নশীপ পেপার জন্য গত রবিবার নাহিদ আমার চেম্বারে আসার কথা ছিল। কিন্তু সে আসেনি। আজ (সোমবার) দেড়টার দিকে সে আমাকে ফোন দেয়। আমি চেম্বারে আসলে সে আমাকে তার নানা রকম ক্ষমতার হুমকি দেয়। তার ইন্টার্নশী পেপারে স্বাক্ষর করতে দেরি করার জন্য আমার শিক্ষকতার যোগ্যতাসহ নানা রকম বাজে কথা বলে ও আমাকে মারধর করে।

নাহিদ হায়দারের দাবি, হাসনাত স্যার তাকে তার বাবা মা তুলে গালিগালাজ করে। এতে আমার প্রচ- রাগ হয়ে যায়। তখন আমি রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারিনি।

আইবিএ’র পরিচালক জানান, নাহিদকে পুলিশে দেয়া হয়েছে। পুলিশ তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিবে।

জানতে চাইলে মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, শিক্ষকদের পক্ষ থেকে এখনে কোনো অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ অনুযায়ী তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১