রাবিতে গাছ কেটে ঝড়ের অজুহাত : নেপথ্যে শিক্ষক

রাবিতে গাছ কেটে ঝড়ের অজুহাত : নেপথ্যে শিক্ষকনিজস্ব প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) ইন্সটিটিউট অব বায়োলোজিক্যাল গবেষনা মাঠের গাছ কাটার হিড়িক পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই মাঠে অবস্থিত ৯টি গাছ অর্ধেক করে কেটে রেখেছে নিরাপত্তা প্রহরীরা (গার্ড)। গাছগুলির মধ্যে রয়েছে আম গাছ ২টা, অর্জুন গাছ ৪টা, শিমুল গাছ ১টা, কাঠাল গাছ ১টা, ২টি লিচু গাছ। ইতি পূর্বেই ১টি কাঠাল ও ২টি লিচু গাছ কেটে কতৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই নিয়ে গেছে গার্ডেরা। এর আগে গত বৃহস্পতিবার অন্যান্য কর্তনকৃত গাছের মধ্যে সামান্য ঝড়ে পড়ে গেছে আরও চারটি গাছ।

বিষয়টি নিয়ে রাবিতে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। খবর পেয়ে রাবি ইন্সটিটিউট অব বায়োলোজিক্যাল সায়েন্স গবেষনা মাঠের দায়িত্বে থাকা (উপ-পরিক্ষা নিয়ন্ত্রক) ড. মো. মমিনুল ইসলাম বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তরের পরিচালক মো. ফিরোজ আলমকে অবগত করেছেন। পরে ওই দপ্তর থেকে চারজন শিক্ষক সরেজমিনে পরিদর্শণ করেছেন। এ সময় তারা গার্ডদের গাছ না সরানোর নির্দেশ দেন। উপ-পরিক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. মমিনুল ইসলাম গাছ কর্তনের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গাছ কাটার বিষয়টি সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরের পরিচালককে অবগত করা হয়েছে। গবেষনা মাঠ পরিদর্শণ করা হয়েছে। গাছ না সরানোর জন্য গার্ডদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তিনি আর ও বলেন, গবেষনা মাঠে ৪জন গার্ড ও ৩জন মালি দায়িত্ব পালন করেন। তারই গাছগুলি কেটে রাখে। আর সামন্য ঝড়বৃষ্টি হলেই বাকিটা কেটে মাটিতে ফেলে দেয়। এসব অপকর্ম করে ঝড়ের দোহাই দেয় তারা। এছাড়াও গাছ কাটার কথা স্বিকার করেছে গার্ড ও মালিরা। তাদের ভাষ্য অনুযায়ী রাবি শিক্ষক আরিফ শেখ এর নির্দেশে গাছ কেটেছেন তারা। ইতি পূর্বেও দুইটি লিচু গাছ ও একটি কাঠাল গাছ কেটে নিয়ে গেছে গার্ডও মালিরা। এভাবেই রাবির সম্পদ লুটপাটের করা হচ্ছে বলেও জানান এই কর্মকর্তা। এদিকে, গতকাল শনিবার রাবি গবেষনা মাঠে গিয়ে দেখা যায়, একাধিক আমগাছসহ নানান জাতের গাছের গোড়া করাত দিয়ে কাটা। ২৪ ঘন্টা কড়া নিরাপত্তার মাঝেও গাছ কাটার বিষয়টি জানতে চাইলে ডিউটিরত গার্ডেরা কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে রাজি হননি।

এই রকম আরও খবর দেখুন

সর্বশেষ আপডেট

অ্যার্কাইভ ক্যালেন্ডার
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০